স্টাফ করেসপন্ডেন্ট।।ক্যাপিটালমার্কেট২৪.কম

অক্টোবর ২৮, ২০১৮

পরিবহন ধর্মঘট, ভোগান্তিতে মানুষ

সড়ক পরিবহন আইনের কয়েকটি ধারা পরিবর্তনের দাবিতে দেশজুড়ে ৪৮ ঘণ্টার ‘কর্মবিরতি’ পালন করছে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন। রোববার সকাল ৬টা থেকে এ ‘কর্মবিরতি’ শুরু হয়।রাজধানীর বিমানবন্দর সড়ক, ফার্মগেট, কারওয়ান বাজার, সাতরাস্তা, মহাখালী, মিরপুর, ধানমন্ডি, উত্তরা, যাত্রাবাড়ীসহ বিভিন্ন এলাকায় ব্যক্তিগত গাড়ি ছাড়া রাস্তায় কোনো গণপরিবহন নেই।

এদিকে মাঝেমধ্যে কিছু সিএনজিচালিত অটোরিকশার দেখা মিললেও তারা নিচ্ছে ‘গলাকাটা’ ভাড়া। আবার এই ভাড়ায় রাজি হয়ে অটোরিকশায় করে গন্তব্যস্থলে যেতে গেলে মাঝপথে পরিবহন শ্রমিকরা অটোরিকশা থামিয়ে দিচ্ছেন।

এর ফলে দিনের শুরুতেই চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন কর্মস্থলগামী মানুষ ও স্কুল-কলেজগামী ছাত্র-ছাত্রীরা। এদিকে এই কর্মবিরতির কারণে ঢাকা থেকে দূরপাল্লার কোনো গাড়ি ছেড়ে যেতে পারছে না। তেমনি ঢুকতেও পারছে না ঢাকায়।

এর আগে গতকাল শনিবার শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি সংসদ সদস্য ওয়াজিউদ্দিন খান ও সাধারণ সম্পাদক উছমান আলী স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ১৯ সেপ্টেম্বর জাতীয় সংসদে ‘সড়ক পরিবহন আইন -২০১৮’ পাস হয়েছে। এ আইনে শ্রমিক স্বার্থ রক্ষা ও পরিপন্থী উভয় ধারা রয়েছে।

এছাড়া সড়ক দুর্ঘটনাকে দুর্ঘটনা হিসেবে গণ্য না করে অপরাধ হিসেবে গণ্য করে আইন পাস করা হয়েছে। আইনে সড়ক দুর্ঘটনা মামলায় অপরাধী হয়ে ফাঁসির ঝুঁকি রয়েছে। এমনই অনিশ্চিত ও আতঙ্কগ্রস্ত হয়ে পেশায় দায়িত্ব পালন করা শ্রমিকদের পক্ষে সম্ভব হচ্ছে না। এর কারণে আন্দোলন ছাড়া বিকল্প কোনো আমাদের সামনে খোলা নেই।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, এ আইনের সংশোধন ও উদ্ভূত পরিস্থিতিতে সমস্যা নিরসনের লক্ষ্যে রবিবার সকাল ৬টা থেকে দেশজুড়ে ৪৮ ঘণ্টার কর্মবিরতি পালন করা হবে।