স্টাফ করেসপন্ডেন্ট ।।ক্যাপিটালমাকের্ট২৪.কম

মার্চ ২৪, ২০১৮

মঙ্গলবার আসছেন ভারতের নিরাপত্তা উপদেষ্টা

ঢাকায় আসছেন ভারতের নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভাল। তিন দিনের সফরে আগামী মঙ্গলবার তিনি ঢাকায় আসবেন। এর পরই আগামী মাসের প্রথম সপ্তাহে আসছেন ভারতের পররাষ্ট্রসচিব। বাংলাদেশে নির্বাচনের বছর হওয়ায় ভারতের কাছেও এটি গুরুত্বপূর্ণ সময় হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে। এমনটাই দাবি করা হয়েছে ভারতের একটি প্রভাবশালী পত্রিকার এক প্রতিবেদনে।

শনিবার ভারতের আনন্দবাজার পত্রিকার অনলাইন এক প্রতিবেদনে এ খবর দেয়া হয়েছে।প্রতিবেদনে বলা হয়, বাংলাদেশে চলতি বছরের শেষ দিকে ভোট। রাজনৈতিকভাবে এই গুরুত্বপূর্ণ সময়ে দু’দেশের যোগাযোগ বাড়ানোয় জোর দিচ্ছে ঢাকা। নয়াদিল্লিও নজর রাখছে পরিস্থিতির ওপর।

এবার সমুদ্র নিরাপত্তাসহ দক্ষিণ এশিয়ার সামগ্রিক সুরক্ষা সহযোগিতার বিষয়টি খতিয়ে দেখতে আগামী সপ্তাহে ঢাকায় বসছে বিমস্টেক (বে অব বেঙ্গল ইনিসিয়েটিভ ফর মাল্টি-সেক্টরাল টেকনিক্যাল অ্যান্ড ইকনমিক কো-অপারেশন) দেশগুলির দ্বিতীয় নিরাপত্তা বৈঠক। তাতে যোগ দিতে মঙ্গলবার তিন দিনের সফরে ‘ঢাকায় যাচ্ছেন’ জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভাল। বহুপাক্ষিক আলোচনার পাশাপাশি বাংলাদেশের শীর্ষ কর্তাদের সঙ্গেও সামগ্রিক নিরাপত্তা নিয়ে আলোচনা করবেন ডোভাল।

আনন্দবাজারের প্রতিবেদন অনুযায়ী, বাংলাদেশে নির্বাচনের বছর হওয়ায় ভারতের কাছেও এখন গুরুত্ব সময়। যে কারণে নিরাপত্তা উপদেষ্টার সফরের পর আগামী মাসের ৭ তারিখে বাংলাদেশে আসবেন ভারতের পররাষ্ট্রসচিব বিজয় গোখলে।প্রতিবেদনে বলা হয়, ‘প্রতিবেশী রাষ্ট্রে ভোট এগিয়ে আসার সঙ্গে সঙ্গে যাতে সাম্প্রদায়িক হিংসা অথবা জঙ্গি সন্ত্রাসের মতো ঘটনা না বাড়ে, সেটাই চায় ভারত।’

এতে আরও বলা হয়, সম্প্রতি ঢাকায় বিমস্টেক-এর ২০ বছর উপলক্ষে একটি অনুষ্ঠানে বাংলাদেশে ভারতীয় হাইকমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রিংলা বলেছেন, ‘গোটা অঞ্চলের জন্য সন্ত্রাসবাদই এখনও সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ। জঙ্গিদের কৌশল বদলাচ্ছে, তাদের নেটওয়ার্কও শক্তিশালী হচ্ছে। কোনও ভৌগোলিক সীমাই তারা মানে না। ফলে সন্ত্রাস রুখতে একসঙ্গে কাজ করতে হবে।’

বিমস্টেক-এ রয়েছে ভুটান, মায়নমার, নেপাল, শ্রীলঙ্কা এবং তাইল্যান্ডও। রোহিঙ্গা সমস্যাটি এই মঞ্চে তুলে ধরবে ঢাকা। বাংলাদেশের রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধানসূত্র খুঁজে বের করা ভারতের কাছেও একটা বড় চ্যালেঞ্জ। ইতিমধ্যেই মায়ানমারের রাখাইন প্রদেশকে ঢেলে সাজার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে দিল্লি। ওই বৈঠকে থাকবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিরক্ষা ও নিরাপত্তা উপদেষ্টা মেজর জেনারেল (অবসরপ্রাপ্ত) তারেক আহমেদ সিদ্দিকি। সূত্র: আনন্দবাজার।